১০ মিনিটে তৈরি হবে বাচ্চার পছন্দের ৫ টিফিন

বাচ্চার পছন্দের ৫ টিফিন
১০ মিনিটে তৈরি হবে বাচ্চার পছন্দের ৫ টিফিন

রোজ সকালে বাচ্চাদের টিফিন দেওয়া নিয়ে মায়েদের চিন্তার যেন শেষ নেই। সব খাবার বাচ্চারা খায় না। আর যেসব তারা খেতে ভালোবাসে, সেগুলো সকাল সকাল তৈরি করে দেওয়া অসম্ভব। আজ জানিয়ে দিচ্ছি এমন কিছু কৌশল ও রেসিপি, যেগুলোর সাহায্যে প্রতিদিন সকালে মাত্র ১০ মিনিটেই সন্তানের জন্য দারুণ টিফিন তৈরি করে দিতে পারবেন আপনি। কোন পূর্ব প্রস্তুতি লাগবে না, খাবার ফ্রোজেন করেও রাখতে হবে না। সবই হবে একদম ফ্রেশ!

১। অনেক রকম স্যান্ডুইচ
এই খাবারটি হরেক রকমের স্বাদে তৈরি করা যায়। ফলে সপ্তাহে ৭ দিনও যদি স্যান্ডুইচ দিতে চান, তাতেও খারাপ লাগবে না। বাসায় ভালো মানের পাউরুটি রাখুন বা নিজেই বেক করে নিন। মেয়নিজ বা মাখন রাখুন, কিছু চিজ, সালামি ইত্যাদিও রাখুন। ডিম সেদ্ধ করে মেয়নিজ দিয়ে মেখে স্যান্ডুইচ তৈরি করতে পারেন। ডিম ভাজা, সালামি ও মেয়নেজ দিয়ে তৈরি করতে পারেন। পিনাট বাটার, জেলি ইত্যাদি দিয়েও তৈরি করতে পারেন। আপনার ইচ্ছামতো যে কোন কিছুই দিতে পারেন, চাইলে সবজিও। সাথে একটি চিজ, মাখন, কেচাপ বা মেয়নেজ দিলেই বাচ্চারা মজা করে খাবে।

২। তিন রকম প্যানকেক
ঝাল কিংবা মিষ্টি, দুটি স্বাদেই প্যানকেক তৈরি সম্ভব। ডিম, চিনি, ময়দা , মাখন, দুধ ও বেকিং পাউডার ভালো করে ফেটে নিয়ে ব্যাটার তৈরি করুন। এরপর প্যানে মাখন দিয়ে প্যান কেক তৈরি করে নিন। ঝাল করতে চাইলে চিনি বাদ দিয়ে নানান রকমের মশলা, সবজি, মাংস ইত্যাদি দিতে পারেন। এছাড়াও ব্যাটার একটি পাতলা করে পাটিশাপটার মতোন পাতলা ক্রেপ তৈরি করে নিতে পারেন। এই ক্রেপের মাঝে ফল, সবজি, মাংস ইত্যাদি দিয়ে রোল করে নিলেই মজার টিফিন তৈরি।

৩। চীজ অমলেট
ডিম ভালো করে ফেটে নিন একটু লবণ ও গোল মরিচ গুঁড়ো দিয়ে। এবার ছড়ানো একটি প্যানে অল্প মাখন দিন। গরম হলে ডিম দিয়ে দিন। ছড়িয়ে দিন। এরপর চাইলে গাজর, টমেটো ইত্যাদি সবজি ডিমের ওপরে ছড়িয়ে দিতে পারেন। চিজ ছড়িয়ে দিন ডিমের অর্ধেক অংশে, বাকি অর্ধেক ভাঁজ করে চীজ ঢেকে দিন। সুন্দর চাঁদের মতোন শেপ হবে। এবার সাবধানে উলটে পাল্টে ভেজে নিন। টিফিনে কেবল এই অমলেটই দিতে পারেন। চাইলে সাথে যোগ করুন পাউরুটি বা ফ্রায়েড রাইস।

৪। ২ রকম ফ্রেঞ্চ টোস্ট
একে বোম্বাই টোস্ট নামেই চেনেন সবাই। ডিম, দুধ, চিনির মাঝে পাউরুটি ডুবিয়ে ভেজে নেয়ার নামই ফ্রেঞ্চ টোস্ট। কিন্তু একে মজার করতে যোগ করুন ভ্যানিলা এসেন্স, ভাজুন মাখন দিয়ে। সাধারণ ফ্রেঞ্চ টোস্ট অন্য মাত্রা পাবে। ঝাল করতে চাইলে চিনি বাদ দিয়ে পেঁয়াজ- মরিচ যোগ করুন। এমন কি কেকের স্লাইসও এভাবে ভেজে টিফিনে দিতে পারেন।

৫। আলুর পাকোরা
আলু গ্রেট করে নিন মিহি করে। চাইলে সাথে সবজি যোগ করতে পারেন। অল্প একটু বেসন আর আপনার পছন্দের মশলা দিয়ে মেখে নিন। পাতলা পাতলা পাকোরা তৈরি করে ভেজে নিন কম তেলে। কেচাপের সাথে বাচ্চারা খুব মজা করে খাবে, আলু আছে বিধায় সবজি নিয়েই বাহানা করবে না।

একঘেঁয়ে টিফিন হলে সব বাচ্চাই অনীহা বোধ করে খেতে। খাবার যেটাই হোক, তাতে বৈচিত্র্য আনুন। বাড়তি যোগ করুন ফল, বাদাম, বিস্কিট। বৈচিত্র্য নিয়ে এলে টিফিন না খাওয়ার সব অভিযোগ দূর হয়ে যাবে।

(Visited 788 times, 1 visits today)
Share :
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Be the First to Comment!

Notify of
avatar