রেস্তরাঁ নয়, এখন থেকে বাড়িতেই হবে জনপ্রিয় খাবার ‘কুলচা’

kulcha
রেস্তরাঁ নয়, এখন থেকে বাড়িতেই হবে জনপ্রিয় খাবার 'কুলচা'

রোজকার এক ঘেয়েমি খাবার থেকে রেহাই পেতে চাইলে, স্বাদে ও রান্নায় চাই ভিন্নতা। এর মঝে ভিনদেশি খাবার হলেতো কথাই নেই। ভিনদেশি এসব খাবার রুচিতে আনে পরিবর্তন, আনে স্বাদের ভিন্নতা। বিশেষ করে ঝটপট তৈরি সুস্বাদু খাবারে থাকে বেশি আগ্রহ। তেমনি একটি মুখরোচক খাবার কুলচা। এটি উত্তর ভারতে অত্যন্ত জনপ্রিয়। সকালে বা বিকেলের নাস্তায় পছন্দের সস, সালাদ, মেয়োনিজ বা তরকারি দিয়ে খেতে পারেন মজার স্বাদের কুলচা। আসুন, তাহলে শিখে নেয়া যাক কুলচা তৈরির রেসিপি –

কুলচার জন্য উপকরণঃ

  • ১। ময়দা ২ কাপ,
    ২। দই ৩ টেবিল চামচ,
    ৩। বেকিং সোডা আধা চা চামচ,
    ৪। তেল ২ টেবিল চামচ,
    ৫। লবণ স্বাদ মতো।

পুরের জন্য উপকরণঃ

  • ১। সেদ্ধ আলু এক কাপ,
    ২। কাঁচা মরিচ ৪টি,
    ৩। আদা কুচি ১ চা চামচ,
    ৪। মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ,
    ৫। গরম মসলা ১ চা চামচ,
    ৬। ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ,
    ৭। লবণ স্বাদ মতো।

প্রণালীঃ
– কুলচা বানানোর উপকরণগুলো দিয়ে ভালো করে ময়দা মাখতে হবে। ময়দা মাখা হয়ে গেলে একটি ভিজে কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখুন ৩ থেকে ৪ ঘণ্টা।
– অন্য একটি পাত্রে খোসা ছাড়ানো সেদ্ধ আলু ভালো করে চটকে মাখুন। পুরের বাকি উপকরণগুলোও ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে পুর তৈরি করতে হবে।
– এবার মেখে রাখা ময়দা থেকে সমান ভাগে পাঁচটা লেচি তৈরি করুন। রুটির ভিতরে আলুর পুর ভরে ভালো করে মুড়ে মুখ বন্ধ করে নিন। এবার ভালো করে আর একবার হাল্কা হাতে বেলে নিন। যেন রুটি ফেটে পুর বেরিয়ে না আসে।
– তাওয়া গরম হয়ে গেলে একটি একটি করে কুলচা দিন। যতক্ষণ না হাল্কা খয়েরি রং ধরছে সেঁকতে থাকুন। একদিক হয়ে গেলে কুলচার দিকটা পাল্টে আবার ভালো করে সেঁকে নিন। একইভাবে বাকি কুলচাগুলো বানিয়ে নিন।
– এবার পরিবেশন করুন পছন্দ মতো সস, চাটনি, সালাদ, কাবাব বা তরকারির সঙ্গে।

কিছু টিপসঃ
– আপনি চাইলে একই নিয়মে পনির দিয়ে ‘পনির কুলচা’ তৈরি করতে পারেন।
– আলুর বদলে চাইলে ফুলকপি, গাজর বা বিভিন্ন শাক ব্যবহার করতে পারেন।

(Visited 48 times, 1 visits today)
Share :
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Be the First to Comment!

Notify of
avatar